ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এ এসইও করার সুবিধাগুলো জেনে নিন

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে এসইও করার সুবিধাগুলো জেনে নিন

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে এসইও করার সুবিধাগুলো জেনে নিন

বর্তমানে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট অনেক বেশি জনপ্রিয়। ‍গুগল অ্যাডসেন্স, ওয়েবসাইট Rank করার কাজে এসইও করা অনেক বেশি প্রয়োজনীয়।

আমরা সাধারণত সাইটের এসইও করে থাকি সাইটগুলো দ্রুত Rank করানোর জন্য। এবং অনেক বেশি দ্রুত টপ এ নিয়ে আসার জন্য।

বর্তমানে অনেকেই ব্লগার ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করছে।

আর এই ধরনের সাইট নিয়ে কাজ করতে গিয়ে অনেকেই আছেন যারা অনেক ভালো করছেন।

বিগত কয়েক বছর আগে গুগল অ্যাডসেন্স বাংলা সাইটেও দেওয়ার কারণে অনেকেই বাংলাতেই ব্লগিং করছে।

যা অনেক জরুরী এবং অনেক উপকারী একটি বিষয়।

 

>> ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এ এসইও করার সুবিধাগুলো জেনে নিন

সুবিধাগুলো নিচে আলোচনা করা হলো। 

১. দ্রুত সাইট Rank করানো যায়

অপেক্ষাকৃত ব্লগার সাইটের চাইতে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট অনেক দ্রুত Rank করানো যায়। এখানে বিভিন্ন ধরনের প্লাগইন ব্যবহার করার মাধ্যমে সাইটের স্পিড অনেক বাড়ানো যায়।

অনেক সময় আমরা ব্লগার সাইটে কিছু আপডেট নিজে নিজে করতে পারি না।

যেমন, কোন পোস্ট লিখার পর সেগুলো আপডেট করার সমস্যা হয়। পারমালিংক নিয়ে অনেক সমস্যায় পড়তে হয় মাঝে মাঝে।

আবার অনেক সময় কিছু ইমেজ ও তার লিংকগুলো সামান্য আপডেট করার দরকার পড়ে যদিও ওয়ার্ডপ্রেস হলে সুবিধা হয় এই সবকাজগুলো।

ওয়ার্ডপ্রেস এমন একটা সিএমএস প্লাটফরম যেখানে আপনি চাইলেই অনেক ভালো মতো সাইট রান করতে পারবেন।

এখানে আপনি একটা পোস্ট যেমন ইচ্ছা তেমন করে সাজাতে পারবেন। আর এখানে সাইটের ডিজাইন নিজের মত করে করা যায়।

ব্লগার সাইট অনেকেই করে থাকে সিকিউরিটির জন্য কিন্তু ওয়ার্ডপ্রেস সাইটেরও সিকিউরিটি অনেকটাই বেশি বর্তমানে।

আপনি যদি ভালো কোন কম্পানির ডোমেইন ও হোস্টিং ব্যবহার করতে পারেন তাহলে এর সিকিউরিটি অনেক ভালো পাওয়া যাবে।

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে এখন তো ভিজিটরও নিয়ন্ত্রন করা যায়।

অর্থ্যৎ কতজন ভিজিটর আসবে এবং একজন ভিজিটর আবার ২য়বার আসবে কিনা এবং সে আসলে অ্যাডস সো করবে কিনা

সেগুলোও এখন নিয়ন্ত্রণ করা যায় ওয়াডপ্রেস সাইটের মাধ্যমে।

>> এসইও ফ্রেন্ডলী কনটেন্ট এর ৫টি বৈশিষ্ট্য

 

২. অরগানিক ভিজিটর নিয়ে আসা সহজ হয় 

অরগানিক ভিজিটর ছাড়া তো কোন সাইটই ভালো বা দ্রুত Rank করানো যায় না।

আর আপনি যদি ব্লগার সাইটে এসইও করতে চান তাহলে সেভাবে করতে পারবেন না।

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে যতটা সহজেই এসইও করা যায় ব্লগার সাইটে ততটা সহজে এসইও করা যায় না।

আর এসইও না করলে অরগানিক ভিজিটরও আনা সম্ভব হয় না। অরগানিক ভিজিটর নিয়ে আসার অন্যতম আরও কিছু

কাজের মধ্যে অন্যতম কাজ হলো নিয়মিত রিসার্চ করে পোস্ট বা কনটেন্ট পাবলিশ করা।

রিসার্চ না করে লিখলে আপনি ভালো করতে পারবেন না এখানে। কারণ একটা সাইট অরগানিকভাবে রান করার জন্য

আপনাকে অনেক ভালো মানের কনটেন্ট পাবলিশ করতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেসের এমন কিছু প্লাগইন আছে যেগুলো ব্যবহার করলে অরগানিক ভিজিটরই কেবল মাত্র সাইটের অ্যাডস সো

করা দেখতে পাবে এমন কিছু সেটিং থাকে। আসলে আমরা অনেক সময় ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের সিকিউরিটিগুলো শুনে

থাকলেও নিজেদের সাইটে ব্যবহার করি না তেমন। কারণ আমরা ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের প্লাগইন গুলো সম্পর্কে এতটা বেশি অবহিত নই।

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের আরও কিছু সুবিধার মধ্যে তম হলে যদি ডিরেক্ট ভিজিটর আসে তাহলে অ্যাডস সো করা দেখতে পাবে না।

আর কোন ভিজিটর যদি অ্যাডসেন্স না দেখতে পাই তাহলে তো সে অ্যাডস ক্লিকও করতে পারবে না।

 

৩. ওয়েবসাইট সাইটে ট্রাফিক বৃদ্ধি করার জন্য 

ব্লগার সাইটে আপনি অনেক ভালো করতে হলে আপনাকে অনেক বেশি ফোর্স দিতে হবে সাইটের প্রতি।

অথচ আপনি কম পরিমাণ ফোর্স দিয়েও অনেক ভালো করতে পারবেন যদি আপনি নিয়মিত রিসার্চ করে লিখতে পারেন।

একটা সাইটের ট্রাফিক বাড়ার জন্য অনেক গুলো বিষয় জড়িত থাকে। তার মধ্যে অন্যতম কিছু বিষয় হলো,

সাইটের ডিজাইন ও সাইটের কনটেন্ট এবং সাইটের লুকিং। অনেক সময় আপনি অনেক ভালো টাইটেল দিলেন তারপরেও

আপনি ভালো ফলাফল পাবেন না। কারণ এখানে একজন ভিজিটর আপনার সাইটে আসবে কনটেন্ট দেখে।

আর কনটেন্ট যদি ভালো হয় তাহলে ভিজিটর আপনার সাইটে এসে বেশি সময় থাকবে।

যদি কনটেন্ট ভালো না হয় তাহলে ভিজিটর এসেই চলে যাবে। যেটার কারণ আপনার সাইটের বাউন্স রেট বৃদ্ধি পাবে।

 

৪. ওয়েবসাইট থেকে আয় বাড়ানো যায় 

ওয়ার্ডপ্রেস সাইট মানুষ মূলত করে এই জন্য যে, এখান থেকে ভালো পরিমাণে আয় করার সম্ভব হয়।

ব্লগার সাইটের সিপিসি বাড়ানো একটু সমস্যা হয় তবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের সিপিসি অনেকটাই দ্রুত বাড়ে।

আপনি পৃথিবীর উন্নত মানের ব্লগারের সাইট লক্ষ্য করলে বুঝতে পারবেন বিষয়টা।

তারা যখন তাদের সাইট রান করে তারাও এই বিষয়টার প্রতি অনেক বেশিই গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

একটা সাইট রান করার পর সেটাতে যদি আয় না আসে ভালো তাহলে সেটা রান করার মধ্যে কোন যৌক্তিকতাই তো নেই।

আর ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কিছু প্লাগইন আছে এমন যা ব্যবহার করলে আপনি অনেক বেশি ভিজিটর নিয়ে আসতে পারবেন অরগানিক ভাবে।

 

৫. ডাইনামিক ডিজাইন করা যায় 

এসইও করার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টা। আমরা আসলে অনেক সময় লুকিং এর উপর কোন গুরুত্বই দেই না।

একটা সাইটের লুকিং এর উপরেও ভিজিটর কম ও বেশি হওয়া নির্ভর করে থাকে।

ডাইনামিক ডিজাইন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই অনেক বেশি পরিমাণে ডিজাইনের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে।

আর ডিজাইন যত ভালো হবে তত বেশি ভিজিটর আকৃষ্ট করা যাবে।

আমরা অনেকেই আছি সাইট ডিজাইন করার সময় থিমের বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকি।

আসলে থিম তো কাস্টোমাইজ করা যায়। আপনি যখন কোন সাইটের জন্য থিম কাস্টোমাইজ করবেন।

তখন আপনি সেই সাইটের আপডেট সম্পর্কে বুঝতে পারবেন। এবং সেই সাইটের স্পিডসহ আরও বেশ কিছু বিষয় বুঝতে পারবেন।

 

উপরোক্ত ৫টি সুবিধা ছাড়াও আরও অনেক সুবিধা রয়েছে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের।

আপনি নিজে জেনে বুঝে অবশ্যই বিষয়গুলোর প্রতি আগ্রহী হবেন এবং গুরুত্ব দেবেন।

এখানে প্রতিটি ‍সুবিধা কোন না কোন বিষয়ের উপর নির্ভরশীল।

আর আপনি ইচ্ছা করলে এসব বিষয়গুলো ভালো মতো জেনে বুঝে তারপর কাজ করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.