মোবাইল সার্ভিসিং করে আয় করার ৫টি উপায় জেনে রাখুন

মোবাইল সার্ভিসিং করে আয় করার ৫টি উপায় জেনে রাখুন

মোবাইল সার্ভিসিং করে আয় করার ৫টি উপায় জেনে রাখুন

বর্তমানে গুগল অ্যাডসেন্স, এসইও, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন ছাড়াও আরও কিছু কাজ আছে। যেমন, মোবাইল সার্ভিসিং করেও অনলাইনে আয় করার যায়।

মোবাইল ব্যবহার করলে সেই মোবাইল নষ্ট হবে এটাই স্বাভাবিক। আমরা আমাদের মোবাইল বিভিন্ন করণে সার্ভিসিং করে থাকি।

কিন্তু আমাদের অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে মোবাইল সার্ভিসিং করে কি ভালো মানে টাকা আয় করা যায়।

 

আজকের এই প্রতিবেদনে আমি মোবাইল সার্ভিসিং করে আয় করার ৫টি উপায় সম্পর্কে জানাবো।

বর্তমান মোবাইল সার্ভিসিং এর অনেক জনপ্রিয়তা কারণ মোবাইল গ্রাহকের সংখ্যা যেমন বাড়ছে তেমন মোবাইল নষ্ট হওয়া সংখ্যাও বাড়ছে।

তাই মোবাইল সার্ভিসিং এর জনপ্রিয়তাও বাড়ছে। আপনি চাইলেও এই কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

একজন ভালো মোবাইল সার্ভিসিং করে যে সে প্রতি মাসে অনেক টাকা আয় করতে পারে। কিভাবে আয় করা যায় সে সম্পর্কে লিখতে বসেছি।

তাহলে শুরু করা যাক আজকের প্রতিবেদন। 

 

সার্ভিসিং করে আয় করার ৫টি উপায় জেনে রাখুন

১. মোবাইলের ডিসপ্লে সার্ভিসিং করে আয়

বর্তমানে মোবাইলে যে সমস্যা সবসময় হয়ে থাকে সেটি হলো ডিসপ্লে নষ্ট হয়ে যায়।

যারা সাধারাণত উন্নত মানের গেমস খেলে তাদের জন্য ভালো ডিসপ্লের প্রয়োজন হয়।

আর এজন্য আপনি যদি মোবাইলের ডিসপ্লে সার্ভিসিং করে থাকেন তাহলে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন।

কারণ একটি ভালো মানের ডিসপ্লের লাগানো এবং এর দাম অনেক বেশি। যা আপনাকে টাকা আয় করতে সাহায্য করবে।

এভাবে আপনি মোবাইল সার্ভিসিং করে টাকা আয় করতে পারবেন খুব সহজেই। বর্তমানে ভালো ডিসপ্লে ব্যবহার কারীর সংখ্যা অনেক।

আপনি যদি ডিসপ্লে সার্ভিসিং করেন তাহলে টাকা আয় করার দিক থেকে অনেক সফলও হতে পারবেন।

তাহলে আজ থেকেই শুরু করে দেন এই সার্ভিসিং কাজটি। 

>> গুগল অ্যাডসেন্স অপ্রুভাল কোর্স করার ৫টি কারণ

 

২. মোবাইলের ব্যাটারি সার্ভিসিং করে আয়

আমরা যারা মোবাইল ব্যবহার করি তারা বেশির ভাগ সময় ব্যাটারি সমস্যা নিয়ে ভোগে।

কারণ অধিকাংশ ব্যাটারি ঠিক মতো ব্যবহার না করলে অথবা মোবাইলের উপর বেশি চাপ পরলে সেটি নষ্ট হয়ে যায়।

তাই আপনি মোবাইলের ব্যাটারি সার্ভিসিং এর কাজটি যদি করেন তাহলে অনেক দিক থেকে লাভবান হতে পারবেন।

কারণ বর্তমানে প্রতিনিয়তই ব্যাটারি নষ্ট হচ্ছে। ভালো মোবাইলের ব্যাটারি সার্ভিসিং করার দোকান খুবই কম।

তাই আপনি যদি সৎ এবং ভালো পণ্য দিয়ে মোবাইলে ব্যাটারি সার্ভিসিং করেন তাহলে অল্প দিনেই আপনি অনেক জনপ্রিয় হয়ে যাবেন।

জনপ্রিয় হওয়ার পাশাপাশি আপনি এটি থেকে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। 

 

৩. রিসেল সার্ভিসিং করে আয়

আমরা যারা মোবাইল ব্যবহার করি তারা হয়তো লক্ষ করেছেন যে অনেক সময় মোবাইল হ্যাং বা স্লো কাজ করতে থাকে।

তাই অনেক সময় মোবাইল রিসেল কারা প্রয়োজন হয়। কিন্তু সমস্যা হলো সকলেই রিসেল করতে পারেনা।

তাই আপনি যদি মোবাইল রিসেল সার্ভিসিং করার কাজটি করতে পারেন। বর্তমানে এটি অনেক চাহিদা সম্পূর্ণ কাজ। 

 

৪. পুরোনো মোবাইল সার্ভিসিং করে আয় 

আমরা অনেক সময় পুরোনো মোবাইল বিক্রি করে দেই বা ফেলে দেওয়া চেন্তা ভাবনা করি।

আপনি যদি এই মোবাইলের সকল কিছু পরিবর্তন করে নতুন করে তৈরি করেন তাহলে এই মোবাইলটি অনেক ভালো দামে বিক্রি করতে পারবেন ।

মোবাইলের এই সার্ভিসিংটি করে আপনি অনেক সফল হতে পারবেন। 

>> গুগল অ্যাডসেন্স অপ্রুভাল রিজেক্ট করার ৫টি কারণ

 

৫. ছোট খাটো সার্ভিসিং করে আয়

উপরের এই কয়েকটি এই কাজ করে আয় করার উপায় ছাড়াও আপনি ছোট খাটো বিভিন্ন সার্ভিসিং করে আয় করতে পারবেন।

ছোট-খাটো সার্ভিসিং থকে অনেক ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

মোবাইল বিভিন্ন পার্চ পাতি নষ্ট হলে সেটি ঠিক করতে পারেন। ক্যামেরা, সাউন্ড, ফ্লাস মারা, সফটওয়্যার ইত্যাদি। 

>> গুগল অ্যাডসেন্স এর জন্য আবেদন করার আগে যা করণীয়

 

শেষ কথা

এই ছিলো আজকের প্রতিবেদন মোবাইল সার্ভিসিংয়ের মাধ্যমে আয় করার কয়েকটি মাধ্যম বা উপায়। আশা করি সকলেই বুঝতে পারছেন।

বর্তমানে উপরের এই কয়েকটি মাধ্যমে ব্যবহার করে অনেক মানুষ টাকা আয় করছে।

মোবাইল কিভাবে সার্ভিসিং করতে হয় সেটি আপনি অনলাইনের মাধ্যমে শিখতে পারবেন।

প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.